Monday, June 17, 2024
Homeখবরবামফ্রন্টের পক্ষ থেকে ডেপুটেশন জমা মহকুমা শাসকের কাছে। 

- Advertisment -

বামফ্রন্টের পক্ষ থেকে ডেপুটেশন জমা মহকুমা শাসকের কাছে। 

সৌগত মন্ডল, রামপুরহাট -বীরভূম : চলতি মাসের ২৭ এ ফেব্রুয়ারি বীরভূমের পৌরসভা ভোটের দিনক্ষণ ঠিক হয়। ইতিমধ্যে দেখা গেছে বীরভূম জেলার বেশকিছু পৌরসভার ভোটের  প্রার্থীদের দল পরিবর্তন এবং মনোনয়ন তুলে নিতে দেখা গেছে। আজ সবুজ, কাল গেরুয়া ,আজ লাল কালকে সবুজ, দল বদল এর রাজনীতি দেখা যাচ্ছে বীরভূমে। বামফ্রন্টের পক্ষ থেকে একটা অভিযোগ, তাদের প্রার্থীদেরকে খুনের হুমকি, টাকার প্রলোভন দেখানো হচ্ছে এবং মনোনয়ন দেওয়ার জন্য জোর করছেন।

নির্বাচনে দাঁড়ানোর পর থেকে ক্ষমতাসীন দলের পক্ষ থেকে যেভাবে ভীতি প্রদর্শন করা হচ্ছে এবং বামফ্রন্ট প্রার্থীদের বিভিন্ন ভাবে হুমকি দেওয়া হচ্ছে তা গণতন্ত্রের পক্ষে লজ্জাজনক। এবং ভয় পেয়ে বেশ কিছু বামফ্রন্ট প্রার্থী তাদের প্রার্থী পদ প্রত্যাহার করে নিয়েছেন। অবিলম্বে এই নিয়ে কড়া পদক্ষেপ নেওয়ার আর্জি জানিয়ে রামপুরহাটের মহকুমা শাসককে ডেপুটেশন জমা দিল বামফ্রন্ট। উক্ত ডেপুটেশনে উপস্থিত ছিলেন বীরভূম জেলা C P I M এর সম্পাদক সঞ্জিত বর্মন সহ দলীয় কর্মীরা।

বামফ্রন্টের পক্ষ থেকে ডেপুটেশন জমা মহকুমা শাসকের কাছে।

More News – নীতির অভাবে ধুঁকছে, বর্তমান শিক্ষা ব্যবস্থা

বামফ্রন্ট আমলে শিক্ষক শিক্ষিকাদের বেতন বৃদ্ধি ঘটলেও অশোকমিত্র কমিশনের সুপারিশ মেনে প্রাথমিকে ইংরেজি তুলে দেওয়া এবং অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত পাশফেল প্রথার বিলুপ্তি ঘটিয়ে ছাত্রছাত্রীদের যে সমূহ ক্ষতি হয়েছে তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না।
স্বাধীনতার পর পশ্চিমবঙ্গে শিক্ষার স্হান যেখানে ভারতবর্ষের প্রথম ছিল,বর্তমানে তা আজ অনেক নীচে নেমে গেছে। বার বার ভুল শিক্ষানীতির ফলে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে ছাত্র ছাত্রীরা। ভবিষ্যতে সুনাগরিক হিসেবে গড়ে ওঠার ক্ষেত্রে যা অন্তরায় হয়ে দাঁড়ায়। সর্বভারতীয় পরীক্ষায় এই রাজ্যের সাফল্য ক্রমশ পিছিয়ে যাচ্ছে।এর দায়িত্ব শুধুমাত্র শিক্ষক শিক্ষিকা ও ছাত্রছাত্রীদের উপর না চাপিয়ে সরকারের শিক্ষানীতি ও সমানভাবে দায়ী। সম্প্রতি সরকারি নির্দেশিকা জারি করে বলা হয়েছে ফণী ঘৃর্ণিঝড় এবং প্রচন্ড দাবদাহের জন্য রাজ্যের স্কুল গুলি 3 রা মে থেকে 30 শে জুন পর্যন্ত ছুটি থাকবে। এর জন্য ছাত্রছাত্রীদের পঠন পাঠনের ব্যাঘাত ঘটবে। সিলেবাস সময়ে শেষ হবে না। যে সমস্ত ছাত্রছাত্রীদের কোন প্রাইভেট টিউশন নেই, তারা বই থেকে এই দুই মাস দূরে সরে থাকবে। স্কুল সম্পর্কে শিক্ষার্থীদের মনে একটি নেতিবাচক ধারণা তৈরি হবে। এর ফলে ইংরেজি মাধ্যম স্কুল গুলির রমরমা বৃদ্ধি পাবে। Continue Reading

 

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Most Popular

Recent Comments